মধ্যপ্রদেশে মন্ত্রীসভা সম্প্রসারণের পর বিজেপির অন্দরে ক্ষোভ ক্রমশ বাড়ছে। এদিনই রাজ্যের দুই বিজেপি বিধায়কের সমর্থকরা প্রকাশ্যেই মন্ত্রীসভা সম্প্রসারণ নিয়ে বিক্ষোভ দেখান। গতকালই মন্ত্রীসভা সম্প্রসারণের পর প্রকাশ্যে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী উমা ভারতী।

এদিনই মন্ত্রী না হতে পারায় সাগর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক শৈলেন্দ্র সিং প্রতিবাদ স্বরূপ সমর্থকদের নিয়ে ‘জল সত্যাগ্রহ’ আন্দোলনে অংশ নেন। তাঁর সমর্থকদের দাবি শৈলেন্দ্র সিংকে মন্ত্রী করতে হবে। এই বিক্ষোভে নেতৃত্ব দেন বিজেপি ব্যাকওয়ার্ড সেলের প্রাক্তন সদস্য মনোজ রাইকোয়ার।

অন্যদিকে বিজেপির মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের ভূপাল সদর দপ্তরে গিয়ে বিক্ষোভ দেখান নারাওয়ালীর বিধায়ক তফশিলি জাতির প্রতিনিধি প্রদীপ লারিয়ার সমর্থকরা। তাদের দাবি বিধায়ক প্রদীপ লারিয়াকে মন্ত্রী করতে হবে।

এই প্রসঙ্গে শৈলেন্দ্র সিং-এর সমর্থকরা জানিয়েছেন – আমাদের যে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিলো তা পূরণ করা হয়নি। সাগর জেলা থেকে কোনো মন্ত্রী দেওয়া হয়নি। এটা আমাদের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা।

ক্ষুব্ধ বিধায়ক শৈলেন্দ্র সিং জানিয়েছেন – শেষ তিন দশক ধরে এই অঞ্চল থেকে বিজেপিকে বিধায়ক, সাংসদ দেওয়া হলেও এই অঞ্চলে এখনও পর্যন্ত কোনো উন্নতি হয়নি। মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত প্রতিক্রিয়া নিয়ে বিজেপি নেতৃত্বের ভাবা উচিৎ।

উল্লেখ্য মন্ত্রীসভার সম্প্রসারণ নিয়ে দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর গতকালই মধ্যপ্রদেশ মন্ত্রীসভা সম্প্রসারিত হয়। যদিও মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান বিজেপি কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের চাপে নিজের পছন্দমত মন্ত্রীসভা গড়তে পারেননি বলেই রাজনৈতিক মহলের খবর। এমনকি তাঁর ঘনিষ্ঠ বেশ কয়েকজন মন্ত্রীসভা থেকে বাদ পড়েছেন। যা নিয়ে শিবরাজ সিং চৌহান গতকাল জানান – মন্থনে অমৃতই পাওয়া যায়। বিষটুকু শিবকেই হজম করে নিতে হয়। গতকালের মন্ত্রীসভা সম্প্রসারণের পর মন্ত্রীসভায় কংগ্রেস ত্যাগী জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ায় অধিকাংশ অনুগামী স্থান পেয়েছেন।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন