লাগাতার ১৪ দিন ধরে একভাবে বেড়ে চলেছে জ্বালানী তেলের। করোনা ভাইরাস লকডাউনের মধ‍্যেই এই নিয়ে লাগাতার চোদ্দো দিন দাম বাড়লো। রাষ্ট্রীয় তেল বিপণন সংস্থাগুলির দামের বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, শনিবার পেট্রোলের দাম বেড়েছে লিটার প্রতি ৫১ পয়সা এবং ডিজেলের দাম বেড়েছে লিটার প্রতি ৬১ পয়সা। বিগত ১৪ দিনে পেট্রোলের দাম বেড়েছে মোট ৭.৬২ টাকা প্রতি লিটার এবং ডিজেলের দাম বেড়েছে ৮.২৮ টাকা প্রতি লিটার।

এর আগে পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম সবথেকে বেশি বেড়েছিলো অক্টোবর ২০১৮তে। সেই সময় মুম্বাইতে পেট্রোলের দাম ৯০ টাকা ছাড়িয়েছিলো। দিল্লিতে দাম হয়েছিলো ৮৩ টাকা। ওই সময় আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম ব্যারেল প্রতি বেড়েছিলো ৮০ ডলার। গতকাল আন্তর্জাতিক বাজারে ব্রেন্ট ক্রুড অয়েলের দাম ছিলো ৪২.১৯ ডলার প্রতি ব্যারেল। গত মাসেই কেন্দ্রীয় সরকার পেট্রোল এবং ডিজেলের ওপর যথাক্রমে ১০ টাকা এবং ১৩ টাকা লিটার প্রতি এক্সাইজ ডিউটি বাড়ায়। বাড়ানো হয়েছিলো ভ্যাট। বিশেষজ্ঞদের মতে বর্তমানে জ্বালানী তেলের খুচরো দামের ৭০ শতাংশই বিভিন্ন ধরণের ট্যাক্স।

এদিনের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, দিল্লিতে আজ‌ এক লিটার পেট্রোলের দাম‌ ৭৮.৮৮ টাকা। এক লিটার ডিজেলের ‌দাম বেড়ে হয়েছে ৭৬.৪৩ টাকা। 

দিল্লির পাশাপাশি কলকাতা, চেন্নাই ও মুম্বাইয়তেও দাম বেড়েছে জ্বালানি তেলের। দাম বাড়ার পর কলকাতাতে লিটার প্রতি পেট্রোল ও ডিজেলের বর্তমান মূল্য যথাক্রমে ৮০.৬২ টাকা ও ৭৩.০৭ টাকা। 

এদিনের দাম বৃদ্ধির পর মুম্বাইতে পেট্রোলের দাম লিটার প্রতি ৮৫.৭২ টাকা ও ডিজেলের দাম লিটার প্রতি ৭৬.১১ টাকা।

চেন্নাইতে প্রতি লিটার পেট্রোল ও ডিজেলের দাম যথাক্রমে ৮২.২৭ টাকা ও ৭৫.২৯ টাকা।

লকডাউনের কারণে টানা ৮২ দিন জ্বালানি তেলের প্রতিদিনের দাম নির্ধারণ করা বন্ধ রেখেছিল তেল কোম্পানিগুলো। গত ৬ জুন থেকে তা পুনরায় শুরু হয় এবং এরপর প্রতিদিনই জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। লোকাল সেল ট‍্যাক্স বা ভ‍্যাটের ওপর নির্ভর করে দেশজুড়েই পেট্রোল-ডিজেলের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। বিভিন্ন রাজ্যের শুল্কের ওপর তা পরিবর্তিত হয়।

গত ১ জুন চেন্নাইতে পেট্রোলের দাম ছিলো ৭৫.৫৪ টাকা। কলকাতায় দাম ছিলো ৭৩.৩০ টাকা। মুম্বাইতে দাম ছিলো ৭৮.৩২ এবং দিল্লিতে দাম ছিলো ৭১.২৬ টাকা।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন