অভিবাসী শ্রমিকদের মজুরি না দেবার অভিযোগ উঠলো ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অফ ম্যানেজমেন্ট, আহমেদাবাদের বিরুদ্ধে। শ্রমিকদের অভিযোগ তাঁদের দুই মাসের মজুরি দেওয়া হয়নি। এই ঘটনায় শ্রমিকদের পক্ষ থেকে কর্তৃপক্ষকে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে আইআইএম, আহমেদাবাদ কর্তৃপক্ষ।

অভিবাসী শ্রমিকদের পক্ষে আইনজীবী আনন্দবর্ধন জে যাজ্ঞিকের দেওয়া ওই নোটিশে বলা হয়েছে – কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও লকডাউন চলাকালীন আইআইএম, আহমেদাবাদ গত দু’মাস ধরে নির্মাণ কাজে যুক্ত শ্রমিকদের মজুরি দেয়নি।

ওই আইনজীবী আরও জানান, ৩০ জন মহিলা এবং ২০টি শিশু আইআইএম, আহমেদাবাদের এক নির্মাণ ক্ষেত্রে আছেন। যাঁদের শ্রম আইন অনুসারে কোনো সুযোগ সুবিধাই দেওয়া হয়না। গত সোমবারের বিক্ষোভের ঘটনায় প্রায় ৩০০ শ্রমিককে আটক করে পুলিশ। যাঁদের মধ্যে ২৬২ জনকে মুক্তি দেওয়া হলেও ৩৬ জনকে এখনও মুক্তি দেয়নি সোলা পুলিশ থানা এবং তাঁদের আদালতেও পেশ করা হয়নি বলেও জানিয়েছেন আইনজীবী যাজ্ঞিক।

উল্লেখ্য গত সোমবার প্রায় ১০০ অভিবাসী শ্রমিক আইআইএম, আহমেদাবাদের কাছের রাস্তায় নেমে বকেয়া মজুরি এবং বাড়ি ফেরার ব্যবস্থা করার দাবীতে বিক্ষোভ দেখায়। যে বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠি চালায়, কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে বলে অভিযোগ। শ্রমিকদের পক্ষ থেকে পুলিশকে ঢিল ছোঁড়া হয়, পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর করা হয় বলেও জানা গেছে। স্থানীয় পুলিশ সূত্রের বক্তব্য অনুসারে, অভিবাসী শ্রমিকরা বাড়ি ফেরার দাবীতে বিক্ষোভ দেখাতে জড়ো হয়েছিলো। এর পরেই শ্রমিকদের পক্ষ থেকে ওই আইনি নোটিস পাঠানো হয়।

যদিও শ্রমিকদের এই দাবি অস্বীকার করে আইআইএম, আহমেদাবাদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, শ্রমিকদের কোনো মজুরি বকেয়া নেই। তাঁদের সমস্ত মজুরি মিটিয়ে দেওয়া হয়েছে। এঁরা বাড়ি ফেরার দাবীতে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। এর সঙ্গে মজুরীর কোনো সম্পর্ক নেই।

 


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন