হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গী গোষ্ঠীর সাথে সংযুক্ত থাকার অভিযোগে এক বিজেপি নেতাকে গ্রেফতার করলো জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা বা এনআইএ। যদিও বিজেপির দাবি দু'বছর আগেই তাকে বিজেপি থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। জম্মু-কাশ্মীরের এই রাজনীতিবিদের বিরুদ্ধে জঙ্গি গোষ্ঠীকে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ রয়েছে।‌ জম্মু-কাশ্মীরের উচ্চপদস্থ পুলিশ অফিসার দেবেন্দ্র সিংয়ের বিরুদ্ধে তদন্ত করতে গিয়ে এই তথ‍্য হাতে পেয়েছে এনআইএ। জানুয়ারি মাসে দু'জন শীর্ষস্থানীয় মুজাহিদিন জঙ্গীর সাথে একই গাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল দেবেন্দ্র সিংকে।

রাজ‍্যের শোপিয়ান জেলার ওয়াচির সরপঞ্চ তারেক আহমেদ মীর নামের ওই ব্যক্তি বিজেপির টিকিটে ২০১৪ সালের বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। ওই বছরের ডিসেম্বরে শ্রীনগরে একটি নির্বাচনী সমাবেশ চলাকালীন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে একই মঞ্চে ছিলেন তিনি। যদিও জম্মু-কাশ্মীর বিজেপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে দু'বছর আগেই তারেক মীরকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। রাজ‍্য বিজেপির মুখপাত্র আলতাফ ঠাকুর বলেছেন, "২০১৮ সালের অক্টোবরে ওঁকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। ডিসেম্বর মাসের পঞ্চায়েত নির্বাচন নির্দলীয় ভিত্তিতে হয়েছিল।‌ আমরা জানিনা ২০১৪ সালের বিধানসভা নির্বাচনের টিকিট কীভাবে পেয়েছিলেন উনি।‌"

বৃহস্পতিবারই তারেক মীরকে জম্মুর একটি এনআইএ আদালতে হাজির করা হয়েছিল এবং আরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে ছ'দিনের পুলিশ হেফাজতে পাঠানো হয়েছে। দেবেন্দ্র সিংয়ের সাথে একই গাড়ি থেকে উদ্ধার করা হিজাবুল জঙ্গি নাভেদ বাবুকে জিজ্ঞাসাবাদের সময় এই বহিষ্কৃত বিজেপি নেতার নাম উঠে আসে। নাভেদ বাবু তদন্তকারী অফিসারদের জানায়, তারেক মীর তার দলকে অস্ত্র ও গোলাবারুদ সরবরাহ করে।

গোয়েন্দা সংস্থা কর্তৃক জঙ্গিযোগের সতর্কবার্তা থাকা সত্ত্বেও তারেক মীরের নিরাপত্তায় দুই পুলিশ অফিসার নিযুক্ত ছিলেন। গত বছর তাঁর সিকিউরিটি তুলে নেওয়া হয়।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন