কর্ণাটকে যদি কোনও কুকুর মরে তার জন্য কেন প্রধানমন্ত্রীকে মন্তব্য করতে হবে? বক্তা কর্ণাটকের উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠন শ্রীরাম সেনা প্রধান প্রমোদ মুথালিক। যার বিতর্কিত মন্তব্যে ইতিমধ্যেই প্রতিক্রিয়া এসেছে সব মহল থেকে।

বেঙ্গালুরুতে এক জনসভায় ভাষণ দেবার সময় উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের ওই নেতা গৌরী লঙ্কেশের হত্যা সম্পর্কে বলতে গিয়ে একথা বলেন। গৌরী লঙ্কেশের হত্যার পর প্রধানমন্ত্রীর নীরবতা নিয়ে দেশের বিভিন্ন মহল থেকে প্রশ্ন উঠেছিলো।

এর আগে সাংবাদিক গৌরী লঙ্কেশের হত্যাকারী সন্দেহে সিটের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছেন শ্রীরাম সেনার সদস্য পরশুরাম ওয়াঘমারে। শ্রীরাম সেনার প্রধান প্রমোদ মুথালিকের সঙ্গে পরশুরামের একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ার আসার পর মুথালিক প্রথমে পরশুরামকে চিনতে অস্বীকার করেছিলেন। যদিও পরে নিজের বক্তব্য থেকে সরে এসে জানান, পরশুরামের সঙ্গে শ্রীরাম সেনার কোনও সম্পর্ক নেই।

যদিও শ্রীরাম সেনার অন্য এক নেতা রাকেশ মঠ তাঁর ফেসবুক অয়ালে পরশুরামের জন্য অর্থ সাহায্যের আবেদন করেছেন। যে কারণে ওই শ্রীরাম সেনাকেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠানো হলেও তিনি আসেননি বলে জানিয়েছে কর্ণাটক পুলিশ।

গতবছরের ৫ সেপ্টেম্বর নিজের বাড়ির সামনে আততায়ীদের গুলিতে নিহত হন সাংবাদিক গৌরী লঙ্কেশ। এক্ষেত্রে সূত্রের খবর অনুসারে পুলিশ শ্রীরাম সেনা নেতা রাকেশ মঠকে জিজ্ঞাসাবাদ করে গৌরী লঙ্কেশের হত্যার সঙ্গে সে সরাসরি যুক্ত অথবা পরশুরামকে গৌরী হত্যায় মদত জুগিয়েছে কীনা তা জানতে চাইছে।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন