৫ এপ্রিল রবিবার রাত ৯টায় প্রধানমন্ত্রীর আবেদনে মেনে আলো না নেভানোয় এক দলিত পরিবারের ওপর নৃশংস অত‍্যাচার চালানোর অভিযোগ উঠলো গুজ্জর সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে। হরিয়ানার পালওয়াল জেলার ঘটনা। এই ঘটনায় ৩১ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হলেও এখনো কাউকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা‌ গিয়েছে, পিঙ্গোর গ্রামের ধনপাল নামের এক দলিত গুজ্জর সম্প্রদায়ের কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। অভিযোগকারী তাঁর অভিযোগে জানিয়েছেন, রবিবার রাত সাড়ে নয়টা নাগাদ গ্রামের গুজ্জর সম্প্রদায়ের কয়েকজন ব‍্যক্তি তাদের বাড়িতে প্রবেশ করেন। অভিযুক্তদের হাতে লাঠি, ‌লোহার রড, ইট ইত‍্যাদি ছিল। বাড়িতে ঢুকেই ৯টার সময় কেন আলো জ্বলছিল তা নিয়ে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন তারা।

ধনপাল তাদের জানান, যে প্রধানমন্ত্রীর আবেদন মেনে ৯টার সময় ৯ মিনিটের জন্য ঘরের আলো নিভিয়ে রেখেছিলেন তিনি। তা সত্ত্বেও ঘরের সমস্ত জিনিস ভাঙচুর করেন তারা। এরপর জাত নিয়ে গালাগালি দিতে দিতে তাকে ও তার পরিবারের সদস্যদের মারধর করতে শুরু করেন অভিযুক্তরা। ধনপাল, তাঁর ছেলে-মেয়ে ও পরিবারের আরো পাঁচ সদস্য আহত হয়েছেন এই ঘটনায়।

সদর স্টেশন হাউস অফিসার জিতেন্দ্র কুমার জানান, রবিবার রাত ৯টার সময় আলো নেভানো নিয়ে দলিত পরিবার ও গুজ্জর পরিবারের ছেলেমেয়েরা তর্কে জড়িয়ে পড়ে। এরপরই পরিবারের সদস্যরা একে অপরের দিকে পাথর ছুঁড়তে শুরু করেন। এই ঝামেলায় একটি গাড়িও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ভারতীয় দণ্ডবিধির আওতায় অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র ও‌‌ আঘাত করার অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এসসি/এসটি আইনেও মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তরা পলাতক।

প্রসঙ্গত, করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দেশবাসীর একতা প্রকাশের জন্য রবিবার রাত ৯টায় ৯ মিনিটের জন্য ঘরের সমস্ত আলো নিভিয়ে ব‍্যালকনি বা ঘরের দরজার সামনে দাঁড়িয়ে মোমবাতি-প্রদীপ-টর্চ-মোবাইলের ফ্ল‍্যাশ জ্বালার আবেদন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী।

 


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন