দেশের অন্যপ্রান্তে যখন পরিযায়ী শ্রমিকরা কয়েক হাজার কিলোমিটার পায়ে হেঁটে নিজের রাজ্যে পাড়ি দিচ্ছেন, তখন কেরালার চিত্রটা একটু অন্যরকম। কেরালাতে এই মুহূর্তে লক্ষাধিক পরিযায়ী শ্রমিক থাকেন। তাদের জন্য শুক্রবার ৪৬০৩ টি "রিলিফ ক্যাম্প" চালু করেছে পিনারাই বিজয়নের সরকার। সাথে আরো ৩৫ টি ক্যাম্প তৈরি হচ্ছে গৃহহীনদের জন্য। কেরলের সরকারের সূত্র অনুসারে এই ক্যাম্পগুলোতে ১,৪৪,১৪৫ জন পরিযায়ী শ্রমিকের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। গৃহহীনদের ক্যাম্পে আশ্রয় পেয়েছেন ১,৫৪৫ জন।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিজয়ন জানিয়েছেন- "আমরা জানি এখনও এই ব্যবস্থা পর্যাপ্ত নয়। আমাদের এখনো অনেক বেশি সক্রিয় হতে হবে। জেলা প্রশাসক থেকে শুরু করে প্রত্যেক গ্রাম পঞ্চায়েতকে দ্রুততার সঙ্গে এই কাজ করতে হবে। শ্রম দপ্তরের বাড়তি দায়িত্ব নিতে হবে।"

কেরালাতে কাজ করতে আসা বাঙালি, ওড়িশি ও পড়শি একাধিক রাজ্যের শ্রমিকদের সচেতনতার জন্য তাদের মাতৃভাষায় প্রচার চলছে, হ্যান্ডবিল, স্যানিটাইজার, মাস্ক দেওয়া হচ্ছে। যেসব স্বাস্থ্যকর্মীরা হিন্দিতে সাবলীল তাঁদের বাড়তি দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এই ব্যাপারে।

প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলি ভবিষ্যতে রিলিফ ক্যাম্পে রুপান্তরিত করার পরিকল্পনাও নেওয়া হতে পারে বলেও ঘোষণা করেছে কেরল সরকার।

গতকাল পিনারাই বিজয়ন আরও জানান এই মুহূর্তে রাজ্য লটারি বন্ধ থাকার কারণে রাজ্যের ৪৮,৪৫৪ জন লটারির টিকিট বিক্রেতা চরম আর্থিক অসুবিধায় পড়েছেন। তাঁদের জন্য কেরল সরকার ১০০০ টাকা করে অর্থ সাহায্যের ব্যবস্থা করছে। এছাড়াও যেহেতু সমস্ত মন্দির এখন বন্ধ আছে তাই সেইসব মন্দিরে থাকা বাঁদর, রাস্তার কুকুরদের খাওয়াবার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নিচ্ছে কেরল সরকার।

 

 


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন