ইয়েস ব্যাঙ্কের বিষয়ে চুপ করে না থেকে মোদী কী দেশকে জানাবেন কেন ব্যাঙ্কের ঘাড়ে ২০১৪ থেকে ৭,৭৮,০০০ কোটি টাকার ঋণভার চাপলো? শুধুমাত্র ২০১৮-১৯ সালে মকুব করা হয়েছে ১.৮৩ লক্ষ কোটি টাকা। কারা সেই মহান বন্ধু যারা এই বদান্যতায় লাভবান হয়েছেন?  শনিবার এক ট্যুইট বার্তায় একথা জানান সিপিআই(এম) সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি।

 

শনিবার ইয়েস ব্যাঙ্ক প্রসঙ্গে এক ট্যুইট বার্তায় সিপিআই(এম) পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম বলেন - ইয়েস ব্যাঙ্ক নরেন্দ্র মোদীর ঘনিষ্ঠ অনিল আম্বানি, সুভাষ চন্দ্রদের ‘কঠিন পরিস্থিতি’তে থাকা কোম্পানীকে টাকা ধার দিয়েছে। কেন গরিব মানুষেরা তাঁদের কষ্টার্জিত টাকা দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বন্ধুদের দেনা মেটাবে? 

 

এটিএম অথবা নেট ব্যাঙ্কিং থেকে ইয়েস ব্যাঙ্কের গ্রাহকরা কোনো টাকা তুলতে পারছেন না। গত পরশু সন্ধ্যেয় কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষে ইয়েস ব্যাঙ্কে মোরেটোরিয়াম জারির পর থেকেই ইয়েস ব্যাঙ্কের বহু গ্রাহক এটিএম-এর সামনে লাইন দিয়েছেন। যদিও অধিকাংশ ইয়েস ব্যাঙ্কের এটিএম-এ কোনো টাকা না থাকায় তাঁরা টাকা তুলতে পারেননি।

অন্যদিকে কিছু গ্রাহক জানিয়েছেন তাঁরা ব্যাঙ্কের শাখা থেকে চেকের মাধ্যমে ৫০ হাজার টাকা তুলতে পেরেছেন। গত পরশুর পর থেকে ইয়েস ব্যাঙ্কের নেট ব্যাঙ্কিং কাজ করছে না বলে জানা গেছে। ফলে নেট ব্যাঙ্কিং এর মাধ্যমে কোনো লেনদেন করা যাচ্ছেনা। কেউ কেউ জানাচ্ছেন তাঁদের ক্রেডিট কার্ডও কাজ করছে না।

ইয়েস ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গ্রাহকদের সমস্ত রকমের প্রশ্ন ও জিজ্ঞাসার উত্তর পেতে গ্রাহকদের নিকটস্থ ইয়েস ব্যাঙ্কের শাখায় যোগাযোগ করতে হবে। ইয়েস ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে ব্যাঙ্কের সমস্ত এটিএম কাজ করছে।

 


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন