'গঙ্গা যাত্রায়' অংশ নিতে আগামীকাল মীর্জাপুরে যাবেন মুখ‍্যমন্ত্রী যোগী আদিত‍্যনাথ। তার আগে মুখ‍্যমন্ত্রীর যাতায়াতের পথ থেকে বিপথগামী গোরু-বাছুর-ষাঁড় তাড়ানোর সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করছে রাজ‍্য প্রশাসন। এই কাজের জন্য ন'জন জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ারকেও নিয়োগ করেছে প্রশাসন।

সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রীর সফরকালে বিপথগামী প্রাণীদের কারণে যাতে কোনো সমস‍্যা তৈরি না হয় তার জন্য ন'জন জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ারকে নিয়োগ করেছে উত্তরপ্রদেশের গণপূর্ত দপ্তর। গণপূর্ত দপ্তরের এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার একটি চিঠি মারফত ওই ন'জন ইঞ্জিনিয়ারকে মীর্জাপুরের বিভিন্ন জায়গায় নিয়োগ করার কথা জানিয়েছেন। তাঁদের প্রত‍্যেককে আট থেকে দশটি দড়ি নিয়ে যেতে বলা হয়েছে। তাঁদের ওপর নির্দেশ, যদি কোনো বিপথগামী প্রাণী মুখ্যমন্ত্রীর যাতায়াতের পথে চলে আসে তাহলে প্রাণীটিকে দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখতে হবে যাতে মুখ্যমন্ত্রীর যাতায়াতের কোনো বিঘ্ন না ঘটে।

এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ারের এই চিঠির উত্তরে মীর্জাপুর ইঞ্জিনিয়ার অ‍্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে একটি চিঠি লিখে জানানো হয়েছে, তাদের ইঞ্জিনিয়ারদের বিপথগামী প্রাণী ধরার প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় না। এই কাজে যদি কোনো ইঞ্জিনিয়ার আহত হন তাহলে তার দায় এই অ‍্যাসোসিয়েশনের না। প্রশাসন অন‍্য কোনো এজেন্সিকে এই কাজের দায়িত্ব দিলে ভালো হয়।

সোমবার বিজনৌর থেকে এই 'গঙ্গা যাত্রা'র উদ্বোধন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী নিজে। পাঁচ দিন ধরে চলবে এই গঙ্গা যাত্রা। এই যাত্রার দু'টো পথ রয়েছে। একটি, বিজনৌর থেকে কানপুর, অপরটি বাল্লিয়া থেকে কানপুর। বাল্লিয়া থেকে শুরু হওয়া যাত্রার উদ্বোধন করেছিলেন রাজ‍্যের রাজ‍্যপাল আনন্দীবেন প‍্যাটেল।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন