গতকালই ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৩ জন 'বাছাই' করা দক্ষিণপন্থী সদস্য কাশ্মীর সফরে গিয়েছিলেন। জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে দিয়ে রাজ‍্যকে দেওয়া বিশেষ মর্যাদা প্রত‍্যাহার করার পর যেখানে ভারতীয় কোনো রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিকে কাশ্মীরে আসার অনুমতি দেওয়া হয়নি সেখানে এই প্রথম কোনো বিদেশি প্রতিনিধিদের কাশ্মীরে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্র সরকার। যা নিয়ে এই মুহূর্তে জাতীয় রাজনীতি তোলপাড়। তবে কেন্দ্র সরকারের সমালোচনার পাশাপাশি আর একটি বিষয়ও এই মুহূর্তে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে, তা হলো যে NGO এই কাশ্মীর ভ্রমণের আয়োজন করেছে তার পিছনে থাকা মহিলার আসল পরিচয়।

ম‍্যাডি শর্মা নামের ওই মহিলা, যিনি ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের কাশ্মীরে আসার জন্য চিঠি লিখেছিলেন, তাঁর ট‍্যুইটার অ‍্যাকাউন্টে তিনি নিজেকে সোশ্যাল ক‍্যাপিটালিস্ট, ইন্টারন‍্যাশানাল বিজনেস ব্রোকার এবং শিক্ষা উদ‍্যোক্তা হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন। বিদেশি সাংসদদের কাশ্মীর নিয়ে তীব্র বিতর্কের পর থেকেই দিল্লিতে ম‍্যাডি শর্মার অফিসটি বন্ধ রয়েছে।

গত ৭ই অক্টোবর ইউরোপীয় ইউনিয়নের লিবারেল ডেমোক্রেট সাংসদ ক্রিস ডেভিসকে ই-মেল করে ম‍্যাডি শর্মা লেখেন, "আমি ভারতের প্রধানমন্ত্রী মহামান্য নরেন্দ্র মোদীর সাথে একটি মর্যাদাপূর্ণ ভিআইপি বৈঠকের আয়োজন করেছি এবং আপনাদের সেখানে আমন্ত্রণ জানানোর সৌভাগ্য হয়েছে আমার। সম্প্রতি ভারতে হয়ে যাওয়া নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী মোদীর বিশাল জয় এবং ভারত এবং ভারতের জনগণের বিকাশ ও উন্নয়ন বজায় রাখতে তিনি কি পরিকল্পনা নিয়েছেন সেই বিষয়ে আলোচনা হবে। এই বিষয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রভাবশালী সিদ্ধান্ত গ্রহণকারী সাংসদদের সাথে সাক্ষাৎ করতে চান তিনি।"

ম‍্যাডি শর্মার ই-মেলের জবাবে ক্রিস ডেভিস কাশ্মীরের যেখানে খুশি যাওয়া, যে কোনো কাশ্মীরবাসীর সাথে কথা বলা এমনকি সাংবাদিকদের করা যে কোনো প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার লিখিত প্রতিশ্রুতি দাবি করেছিলেন। কিন্তু সুরক্ষার কারণ দেখিয়ে তাঁর এই দাবি মঞ্জুর করেননি ম‍্যাডি শর্মা।

এরপরে ক্রিস জানান, "এটা খুব স্পষ্ট যে কাশ্মীরে গণতান্ত্রিক নীতিগুলো নষ্ট হচ্ছে। ভারত সরকার কি কিছু লুকোতে চাইছে?"


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন