গ্রীন কোর্টের আদেশে ফের খুলতে চলেছে তামিলনাড়ুর ভেদান্ত কপার মেল্টিং প্ল্যান্ট।  শনিবার ন্যাশনাল গ্রীন ট্রাইবুনাল তামিলনাড়ু সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে ভেদান্ত কপার মেল্টিং প্ল্যান্ট খোলার বিষয়ে নতুন করে আদেশ জারি করতে। এর আগে তামিলনাড়ু সরকার পরিবেশগত কারণে এই প্ল্যান্ট চিরতরে বন্ধ করার নির্দেশ জারি করেছিলো।

একই সঙ্গে ন্যাশনাল গ্রীন ট্রাইবুনাল ভেদান্ত কোম্পানীকে আদেশ দিয়েছে আগামী তিন বছরের মধ্যে ১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে স্থানীয় অধিবাসীদের জন্য সমাজ কল্যাণমূলক প্রকল্প গ্রহণ করতে হবে।

তামিলনাড়ুন তুতিকোরিনে অবস্থিত এই প্ল্যান্টকে ঘিরে বিক্ষোভে এর আগে ১৩ জন মানুষের মৃত্যু ঘটেছিলো। স্থানীয় অধিবাসীদের প্রবল বিক্ষোভের জেরে তামিলনাড়ু সরকার চিরতরে এই প্ল্যান্ট বন্ধ করে দেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো। ন্যাশনাল গ্রীন ট্রাইবুনালের এই নির্দেশের পর তামিলনাড়ু সরকারের সিদ্ধান্ত আর কার্যকর রইলো না।

গত ২২ মে এলাকার স্থানীয় অধিবাসী, সমাজকর্মী এবং পরিবেশকর্মীরা স্টারলাইট কপার কারখানার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখান। ওইদিন তাঁদের বিক্ষোভের ১০০ দিন পূর্তি ছিলো। তাঁদের দাবী ছিলো, এই কারখানার জন্য পরিবেশগত সমস্যা দেখা দেবে এবং স্থানীয় মানুষদের স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে গুরুতর সমস্যা সৃষ্টি করবে। এই বিক্ষোভ চলাকালীন পুলিশের সঙ্গে বচসা বাধে এবং বিক্ষোভ হিংস্র আকার ধারণ করে। বহু গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। এরপর অবস্থা নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করে। পুলিশের বেপরোয়া লাঠিচার্জে বহু মানুষ আহত হয়। পরে বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি চালায় স্থানীয় পুলিশ। যাতে ১৩ জন মারা যান।

এর আগে স্টারলাইটের পক্ষ থেকে শহরে তাঁদের ইউনিট বাড়ানোর কথা ঘোষণা করা হয়েছিলো। জানানো হয়েছিলো, এরজন্য প্রয়োজনীয় ছাড়পত্র তাঁদের কাছে আছে এবং কোনও নিয়ম লঙ্ঘন করা হয়নি। বেদান্ত লিমিটেডের কপার ইউনিটের দায়িত্বে থাকা স্টারলাইট ইন্ডাস্ট্রিজ বছরে ৪ লাখ টন উৎপাদন করে থাকে।

গত ২৮ মে তামিলনাড়ু সরকার এক নির্দেশিকা জারি করে ওই কারখানা বন্ধ করে। সরকারের নির্দেশিকাতে জানানো হয়েছিলো – মেসার্স বেদান্ত লিমিটেডকে তামিলনাড়ু দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ থোড্ডুকুড়ির কপার মেল্টার প্ল্যান্ট চালানোর অনুমতি দিচ্ছে না বলে জানিয়েছিলো ৯.৪.২০১৮ তারিখে। গত ২৩.৫.২০১৮ তারিখেও একই কথা জানানো হয়। তামিলনাড়ু দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ গত ২৪.৫.২০১৮ তারিখে ওই কারখানার বিদ্যুৎ সংযোগ ছিন্ন করারও আদেশ দিয়েছে। সংবিধানের ৪৮এ ধারা অনুসারে সরকার পরিবেশ, বনজ সম্পদ এবং বন্যপ্রাণী রক্ষার চেষ্টা চালাবে।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন