বুলন্দশহরে গোরক্ষাবাহিনীর হাতে পুলিশ অফিসার ও এক যুবকের মৃত্যুর ঘটনাকে 'দুর্ঘটনা' বলে উল্লেখ করলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। গত শুক্রবার  দিল্লিতে একটি অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের  আদিত্যনাথ বলেন, "উত্তরপ্রদেশে কোনো গণপিটুনির ঘটনা ঘটেনি।....বুলন্দশহরে যা হয়েছে তা একটা দুর্ঘটনা ছিল।" যদিও এর আগে এই ঘটনাকে তিনি 'বড় ষড়যন্ত্র' বলে মন্তব্য করেছিলেন। মুখ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছেন সমাজবাদী পার্টি সহ অন্যান্য বিরোধী দল।

ইতিমধ্যেই পুলিশের অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর জেনারেল, এস বি শিরদকর এই ঘটনার রিপোর্ট জমা দিয়েছেন। এই রিপোর্টের ভিত্তিতে সার্কেল অফিসার, সত্য প্রকাশ শর্মা ও পুলিশ পোস্টের ইন-চার্জ, সুরেশ কুমারকে ট্রান্সফার করা হয়েছে। রিপোর্টে উল্লেখ রয়েছে, গত সোমবার ওই শহরে হিংসা চলাকালীন তাঁরা নিজেদের দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত সোমবার বুলেন্দশহরে ২৫টি গবাদী পশুর দেহ উদ্ধারের গুজবকে ঘিরে রাস্তায় নেমে হিংসা ছড়াতে থাকে উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলি। এতে এক উচ্চপদস্থ পুলিশ অফিসার সুবোধ কুমার সিং ও সুমিত কুমার সিং নামের যুবক প্রাণ হারান। এই ঘটনায় জড়িত নয় জনকে গ্রেপ্তার করলেও মূল অভিযুক্ত বজরং দলের যোগেশ রাজকে এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

এছাড়াও এই ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে এক সেনা জওয়ানকেও খুঁজছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ, যাকে ঘটনার দিনের সিসিটিভি ফুটেজে বারবার নিহত পুলিশ ইন্সপেক্টরের কাছাকাছি দেখা গেছে। ঘটনার পরদিনই তিনি তাঁর কর্মস্থল জম্মু ও কাশ্মীরে ফিরে যান। তাঁর খোঁজে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের একটি বিশেষ দল জম্মু ও কাশ্মীরে রওনা দিয়েছে। 

 


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন