আর মাত্র হাতে গোণা কয়েকদিন বাকি তেলেঙ্গানা বিধানসভা নির্বাচন। জোরকদমে প্রচার পর্ব সারছে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলি। আর এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করেই ঝুড়ি ঝুড়ি প্রতিশ্রুতি আওড়াচ্ছেন রাজনৈতিক নেতারা।

আগামী ৭ই ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হতে চলা তেলেঙ্গানা বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষ্যে আজ হায়দ্রাবাদে নির্বাচনী প্রচারে গিয়েছিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধী।  সেখানে তিনি বলেন, "বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও(KCR) যুবসমাজকে দেওয়া চাকরির প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে পারেননি। KCR এক লাখ যুবককে চাকরি দেবেন বলেছিলেন কিন্তু উনি কেবলমাত্র ওনার পরিবারকেই চাকরি দিয়েছেন। যদি জনগণ ভোট দিয়ে কংগ্রেসকে জেতায় তাহলে কংগ্রেসের মুখ্যমন্ত্রী ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১৮ ঘন্টা কাজ করবে যুবসমাজের কর্মসংস্থানের উদ্দেশ্যে।"

 হায়দ্রাবাদের এই সভামঞ্চ থেকে কেবল রাজ্য সরকারকেই না কেন্দ্র সরকারকেও তীব্র আক্রমণ করেছেন কংগ্রেস সভাপতি। তাঁর মতে, KCR ও নরেন্দ্র মোদী উভয়ই 'অনেক প্রতিশ্রুতি' দিয়েছে জনগণকে, কিন্তু সেগুলোর একটাও পূরণ করেননি।

নীরব মোদী, বিজয় মালিয়ার প্রসঙ্গ তুলে প্রধানমন্ত্রীকে বিদ্রুপ করে রাহুল গাঁধী বলেছেন, "যদি ভারতের প্রধানমন্ত্রী মাত্র ১৫ জন ব্যক্তির ৩লাখ ৫০হাজার কোটি টাকার ঋণ মকুব করে দিতে পারে তাহলে প্রধানমন্ত্রীর উচিত কৃষকদের সমস্ত কৃষিঋণ মকুব করে দেওয়া।"

"যখন আমরা ক্ষমতায় আসব কৃষকরা যা চায় আমরা তাই করবো। কৃষকদের ২ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ মকুব করে দেওয়া হবে", বলেছেন রাহুল গাঁধী।

তেলেঙ্গানাতে শিল্পের সম্প্রসারণ ঘটাতেও উদ্যোগী হবে কংগ্রেস সরকার। শিল্পের জন্য অধিগৃহীত জমি প্রসঙ্গে রাহুল গাঁধী বলেছেন, "কংগ্রেস সরকার আপনাদের জমি রক্ষা করবে।...যদি পাঁচ বছরের মধ্যে শিল্প না আসে তাহলে প্রত্যেক কৃষককে নিজ নিজ জমি ফিরিয়ে দেওয়া হবে।"

আর ভোট যে বড় বালাই তা বোঝা গেল এই প্রথম কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধী ও একদা বিজেপি জোটসঙ্গী তেলেগু দেশম পার্টির(TDP) প্রধান তথা অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডুকে একসাথে মঞ্চ ভাগ করতে দেখে। গতকাল একসাথে নির্বাচনী প্রচার করছিলেন চন্দ্রবাবু নাইডু ও রাহুল গাঁধী। এমনকি মঞ্চে TDP নেতা, কংগ্রেস সভাপতির সাথে হাত মিলিয়ে বলেছিলেন, "রাহুল গাঁধীর দল ও আমার দলের মধ্যে আদর্শগত কোনো পার্থক্য নেই।"


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন