ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন(EVM)-এর স্বচ্ছতা নিয়ে নির্বাচন কমিশনের কাছে আবার সরব হলেন বিরোধীরা। গত বছর উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনে বিজেপি-র ব্যাপক সাফল্যের পর প্রথম বহুজন সমাজ পার্টির(BSP) নেত্রী মায়াবতী EVM-এর স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। এরপর কংগ্রেস সহ সমস্ত বিরোধীদল একাধিকবার নির্বাচন কমিশনের কাছে দাবি করেছে, EVM-এ সমস্ত ভোট বিজেপি-র পক্ষেই যায়। আজ আবার বিরোধীরা এই ত্রূটিপূর্ণ EVM নিয়ে সরব হয়েছে।

নির্বাচনী সংস্কারে রাজনৈতিক ঐক্যের জন্য সমস্ত আঞ্চলিক ও জাতীয় দলগুলির সাথে একটি বৈঠকের আয়োজন করেছিল নির্বাচন কমিশন। সেখানেই সমস্ত বিরোধীদলগুলি প্রশ্ন তোলে কিভাবে সব EVM-ই ত্রুটিপূর্ণ হয়। ভোট কেবলমাত্র একটি নির্দিষ্ট পার্টির পক্ষেই যায়। যে সংস্থাগুলিতে EVM সারানো হয় সেগুলির নাম ও ঠিকানা বিরোধীদের হাতে তুলে দেওয়ার দাবি তোলেন তাঁরা।

বৈঠকটিতে শাসক দল বিজেপি-র পাশাপাশি উপস্থিত ছিল বিরোধী দল কংগ্রেস, CPI, CPIM, TMC, BSP, NCP ও ৫১টি বিভিন্ন আঞ্চলিক দল।

বৈঠকের পর কংগ্রেস নেতা মুকুল ওয়াসনিক বলেন, " EVM-এ জনগণের ইচ্ছের সঠিক প্রতিফলন হচ্ছে না। একাধিকবার ত্রূটিপূর্ণ EVM ব্যবহার করা হয়েছে এবং একটি রাজনৈতিক দলই ভোট পেয়েছে। কারা EVM মেরামত করে এবং কত পুরোনো EVM ব্যবহার করা হয় আমরা জানতে চাই।" তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে ব্যালট বক্সের মাধ্যমে ভোট ব্যবস্থা ফিরিয়ে আনার দাবি তোলা হয়।

যদিও সম্প্রতি কিছু নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন VVPAT(voter verified paper audit trale) যন্ত্র ব্যবহার করছে। এই যন্ত্র প্রত্যেক ভোটের সমস্ত নথি সংগ্রহে রাখে। কিন্তু এক্ষেত্রে প্রাক্তন নির্বাচন কমিশনার এস ওয়াই কুরেইশি জানান, নির্বাচন কমিশন মাত্র এক শতাংশ ভোটের নথি মিলিয়ে দেখেন। বিরোধীদের সন্দেহ দূর করতে হলে কমপক্ষে ৫ শতাংশ ভোটের নথি মিলিয়ে দেখা উচিত।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন