"পিএম কেয়ারস তহবিল কারো পৈতৃক সম্পত্তি নয়। এর গোপনীয়তা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী এত মরীয়া কেন?" গতকাল এক ট‍্যুইটবার্তায় পিএম কেয়ারস তহবিল প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীকে এভাবেই সরাসরি আক্রমণ করলেন সিপিআইএমের রাজ‍্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র।

দেশে করোনা পরিস্থিতি ও করোনা মোকাবিলায় গঠিত ত্রাণ তহবিল - পিএম কেয়ারস নিয়ে পর্যালোচনা করতে চেয়েছিল পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটি বা পিএসি। যদিও মূলত বিজেপি সদস্যদের বাধায় সব সদস‍্যের সম্মতি আদায়ে ব‍্যর্থ হয়েছে দেশের এই গুরুত্বপূর্ণ সংসদীয় প্যানেল। এই প্রসঙ্গেই ট‍্যুইটারে প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ করেছেন সূর্যকান্ত মিশ্র। তাঁর প্রশ্ন, "অসদুপায় অবলম্বনের উদ্দেশ্য না থাকলে স্বচ্ছ ভারতের এতো ভয় কিসের? কার স্বার্থে করোনা জনিত বিপর্যয় মোকাবেলায় এই তহবিল থেকে অর্থ বরাদ্দ করতে অস্বীকার করা হচ্ছে?"

 

সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, পিএসি যাতে পিএম কেয়ারস ফান্ড নিয়ে পর্যালোচনা জন্য সকল সদস্যদের সম্মতি আদায় করতে না পারে তার জন্য সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছে ক্ষমতাসীন বিজেপি সদস্যরা। আর এই বিষয়ে বিজেপিকে সবথেকে বেশি সমর্থন করছে ওড়িশার আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল বিজু জনতা দল বা বিজেডি। যদিও অধিকাংশ বিরোধী দলই পিএসি'র এই প্রস্তাবকে সমর্থন করেছে।

গতকাল সিপিআইএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরিও এই বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর তীব্র সমালোচনা করেছেন। ট‍্যুইটারে তিনি লেখেন, "প্রধানমন্ত্রী এবং তাঁর সরকার কী গোপন করতে চাইছে? প্রথমত সিএজি দিয়ে কোনো অডিট হবে না। এরপর আরটিআই-এর আবেদন প্রত্যাখ্যান। আর এখন এটা। ভারত জানতে চায় ওই টাকা কীভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। ইলেক্টোরাল বন্ডস, ডিমনিটাইজেশন দুর্নীতির পর এবার পি এম কেয়ারস ফান্ড।"

পিএসির চেয়ারম্যান তথা লোকসভার কংগ্রেস নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী সমস্ত সদস্যদের এই পর্যালোচনার বিষয়ে সহমত হওয়ার আবেদন জানিয়েছেন। তাঁর মতে, দেশের কথা বিবেচনা করে এবং বিবেকের দিক থেকে প্রত‍্যেক সদস‍্যের উচিত এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সম্মতি জানানো।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন