Colors: Orange Color

কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে রাজ্যের সমস্ত পুজো প্যান্ডেলে দর্শক প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি হল। সাম্প্রতিক অতিমারী পরিস্থিতিতে আদৌ পুজো করার অনুমতি দেওয়া উচিৎ কিনা তা নিয়ে হাইকোর্টে যা মামলা দায়ের তার প্রেক্ষিতে সোমবার হাইকোর্ট এই নির্দেশ দিয়েছে।

পুজো কমিটিগুলোকে দেওয়া রাজ্য সরকারের ৫০ হাজার টাকা অনুদানের পাই পয়সার হিসেব দিতে হবে সমস্ত পুজো কমিটিকে। সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসনের কর্তাদের কাছে এই হিসেব দিতে হবে। কলকাতা হাইকোর্টে শুক্রবার এই নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়।

"ভারতীয় সংবিধানের মূল পাঁচটি যে বৈশিষ্ট্য - সার্বভৌম, গণতান্ত্রিক, প্রজাতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষ ও সমাজতান্ত্রিক - এই পাঁচটি বৈশিষ্ট্যই আজ আক্রান্ত। এই সময় আমরা আমাদের পার্টির শতবর্ষে উপনীত হয়েছি। আমাদের পার্টির ঐতিহ্য দিয়ে এই পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে হবে আমাদের। এটাই আমাদের কাছে চ‍্যালেঞ্জ।" ভারতে কমিউনিস্ট পার্ট প্রতিষ্ঠার শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষ্যে শনিবার কলকাতায় আয়োজিত এক সভায় একথা বলেন সিপিআই(এম) রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র। 

বৃষ্টির চোখরাঙানি চলছেই। অক্টোবরের মাঝে এসেও বৃষ্টি কমার সম্ভাবনা নেই। আসন্ন দুর্গাপুজোয় ভিলেন হতে পারে বৃষ্টি। আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে এই খবর পাওয়া গিয়েছে। বঙ্গোপসাগরের ওপর একের পর এক নিম্নচাপের ফলেই এই ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে বলে মনে করছেন আবহাওয়াবিদরা।

"এই সরকারের আমলে সংবাদমাধ্যমের জিভ কেটে নেওয়া হয়েছে। কী হেডলাইন হবে তা বলে দেওয়া হচ্ছে। প্রতিদিন হেডলাইন ম‍্যানেজমেন্ট করা হচ্ছে।" বিজেপি শাসিত কেন্দ্র সরকারের সমালোচনা করে একথা বললেন সিপিআইএম পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম।

রাজ্যের আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বাম ও কংগ্রেস জোট নিয়ে স্পষ্ট বার্তা দিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। বুধবার সকালে নিজের ট্যুইটার ও ফেসবুক পোষ্টে তিনি বলেন – “আগামী নির্বাচনে কংগ্রেস ও কমিউনিস্ট যাকে বলা হয় - বাম ও কংগ্রেস জোট এই বাংলার তৃণমূল ও বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করে সরকার গঠন করবার লক্ষ্যে এগিয়ে যাবে...”

করোনায় আক্রান্ত হলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি ও সাংসদ দিলীপ ঘোষ। গত কয়েকদিন ধরেই অসুস্থতার কারণে তিনি রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছিলেন না। শুক্রবার রাতে তাঁকে সল্টলেকের এক বেসরকারি হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়। আপাতত তিনি চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে রয়েছেন।

অবিলম্বে লোকাল ট্রেন চালু করার দাবিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি দিলেন বিধানসভার বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী। তাঁর অভিযোগ, সরকারকে এই বিষয়ে বারবার বলা সত্ত্বেও কোনো উদ্যোগ নেয়নি।

জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন