সামনেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। এই নির্বাচন নিয়েই সরগরম গোটা আমেরিকা। ট্রাম্প আবার ক্ষমতায় ফিরবেন নাকি জো বিডেন হবেন দেশের নতুন প্রেসিডেন্ট তা নিয়ে চলছে জোরদার আলোচনা৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ২০২০-র এই নির্বাচন অত্যন্ত ব্যয়বহুল হতে চলেছে বলে জানা গিয়েছে। সূত্রের খবর, এই নির্বাচনে মোট খরচ হতে পারে ১৪ বিলিয়ন ডলার।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ইতিহাসে এই ব্যয় সবথেকে বেশি। সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, প্রতি নির্বাচনে প্রচুর পরিমাণে খরচ হয়। কিন্তু চলতি বছরের নির্বাচন সব খরচকে ছাপিয়ে যাবে। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক প্রার্থী জো বিডেন ১ বিলিয়ন ডলার অনুদান হিসেবে পেয়েছেন, এই অর্থ নির্বাচনে লাগানো হবে। এই ধরণের ঘটনা ইতিহাসে প্রথম। ট্রাম্পকে পরাস্ত করতে উঠেপড়ে লেগেছেন তিনি। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি পদপ্রার্থী হওয়ায় ডেমোক্রেটদের মধ্যে উৎসাহ বেড়ে গিয়েছে। ডেমোক্রেটদের প্রচারে রেকর্ড সংখ্যক অর্থ এসেছে বলে জানা গিয়েছে।

অন্যদিকে, ট্রাম্পও চুপচাপ বসে নেই। তিনিও নিজের প্রচার কাজ চালু রেখেছেন। অতিমারির সময়েও আমেরিকার সব নাগরিকরা এই নির্বাচনের জন্য নিজের যথাসাধ্য অনুদান দিচ্ছেন। যা অন্যান্যবারের তুলনায় বেশি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মহিলারাও রেকর্ড সংখ্যক অর্থ দিচ্ছেন। রাজ্য অফিসের প্রার্থী নন তাদেরও অর্থ দেওয়া হচ্ছে।

ভারতের মতো আমেরিকায় যে কোনও নির্বাচনের প্রচারে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বড় বড় র‍্যালি বেরোতে দেখা যায় না৷ টিভিতে রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাটিক দুই দলের প্রার্থীরা বিতর্ক সভায় অংশ নেন৷ সেখানেই নিজের দলের কাজকর্ম এবং ভবিষ্যতের পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন তাঁরা৷ এরপর নভেম্বরের প্রথম মঙ্গলবার নির্বাচনের আয়োজন করা হয়৷ এ বছর যা পড়েছে ৩ নভেম্বর৷ আমেরিকার নাগরিকরা ইলেকটোরাল কলেজের মনোনীত প্রার্থীদের জন্য ভোট দেন৷


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন