ফুসফুসে সংক্রমণ, কিডনির সমস্যা সহ একাধিক রোগে আক্রান্ত হয়ে জীবনাবসান হলো বাংলাদেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের(৯০)। টানা দশদিন ভেন্টিলেশনে থাকার পর রবিবার সকাল পৌনে আটটা নাগাদ সিএমএইচ হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন।

বাংলাদেশের সেনা প্রধান থেকে দেশের রাষ্ট্রপতি হয়েছিলেন তিনি। ১৯৮৩ থেকে ১৯৯০ পর্যন্ত  দেশের সর্বোচ্চ পদে ছিলেন। ১৯৮২ সালের ২৪ এপ্রিল দেশের তৎকালীন রাষ্ট্রপতি আব্দুস সাত্তারকে ক্ষমতাচ্যুত করে দেশে সেনা শাসন জারি করেন। শেষপর্যন্ত অবশ্য গণ আন্দোলনের চাপে তাঁকেও সরে যেতে হয় ক্ষমতা থেকে। অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল তো বটেই, আর্থিক কেলেঙ্কারি, মহিলাঘটিত বিতর্কেও নাম জড়িয়েছিল তার।

বেশ কিছুদিন ধরেই শরীর ভালো না থাকায় তিনি জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের পদে বসিয়ে যান ভাই জি এম কাদেরকে।

ভারতের কোচবিহারে জন্মেছিলেন এরশাদ। স্নাতক হয়ে তিনে যোগ দেন পাক বাহিনীতে। মু্ক্তিযুদ্ধের সময় তিনি ছিলেন পাকিস্তানে। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭৩ সালে তাঁকে বাংলাদেশের সেনাবাহিনীতে নেওয়া হয়। প্রাক্তন সেনাপ্রধান জিয়াউল রহমানের উদ্যোগে তাঁকে সেনা উপ প্রধানের দায়িত্বে আনা হয়। জিয়াউল রহমান রাষ্ট্রপতি হওয়ার পর এরশাদকে আনা হয় সেনাপ্রধান পদে। ১৯৮১ সালে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে খুন হন জিয়াউল হক। এর পেছনে এরশাদের হাত ছিল অভিযোগ করেছিলেন খালেদা জিয়া।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন