UP: কুশীনগর বিমানবন্দরের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী - 'একটাও ইঁট গাঁথেনি বিজেপি' - দাবি অখিলেশের
কুশীনগরের পথে শ্রীলঙ্কার বৌদ্ধ সাধুরাছবি নমল রাজাপক্ষের ট্যুইটার হ্যান্ডেলের সৌজন্যে

UP: কুশীনগর বিমানবন্দরের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী - 'একটাও ইঁট গাঁথেনি বিজেপি' - দাবি অখিলেশের

এদিন এক ট্যুইট বার্তায় অখিলেশ যাদব বলেন, সমাজবাদী পার্টির সরকারের কাজকে নিজের কাজ বলে দাবি করছে বিজেপি। তিনি আরও বলেন, এই বিমানবন্দরের একটা ইটও গাঁথেনি বিজেপি কিন্তু পুরো কাজের কৃতিত্ব দাবি করছে।

বুধবার সকালে উত্তরপ্রদেশের কুশীনগর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের বিমান চলাচলের সূচনা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এটি উত্তরপ্রদেশের তৃতীয় আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর। এদিন শ্রীলঙ্কা থেকে ১০০ বৌদ্ধ তীর্থযাত্রী নিয়ে কুশীনগরে একটি বিমান অবতরণ করে। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই কুশীনগর বিমানবন্দর প্রসঙ্গে কেন্দ্র ও রাজ্যের বিজেপি সরকারের প্রতি আক্রমণের রাস্তায় হাঁটেন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ও সমাজবাদী পার্টির শীর্ষ নেতা অখিলেশ যাদব।

এদিন হিন্দিতে লেখা এক ট্যুইট বার্তায় অখিলেশ যাদব বলেন, সমাজবাদী পার্টির সরকারের কাজকে নিজের কাজ বলে দাবি করছে বিজেপি। তিনি আরও বলেন, এই বিমানবন্দরের একটা ইটও গাঁথেনি বিজেপি কিন্তু পুরো কাজের কৃতিত্ব দাবি করছে। এঁরা কাঁচি, ফিতে, মালা, মিষ্টি নিয়ে হাজির হয়ে গেছে। কিন্তু বিজেপির মনে রাখা উচিৎ, বিমান ওড়ানোর পাইলট হওয়া মানেই বিমানের মালিক হয়ে যাওয়া নয়। যে রানওয়ে ব্যবহার করে আপনারা প্রচার করছেন সেই রানওয়েও অন্য কারো তৈরি।

এর আগেও একাধিকবার রাজ্যের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে অখিলেশ যাদব আক্রমণ শানিয়েছেন। একাধিকবার তিনি বলেছেন বিজেপি সরকার তাঁর করে যাওয়া কাজকে এখন বিজেপি নিজেদের করা কাজ বলে দাবি করছে। তিনি বলেন, রাজ্যে এমন একটা প্রকল্প দেখান যেটা বিজেপি পরিকল্পনা করেছে এবং বাস্তবায়ন করেছে।

এক নজরে কুশীনগর বিমানবন্দরের ইতিহাস -

প্রসঙ্গত কুশীনগর বিমানবন্দরের ইতিহাস বেশ পুরোনো। ১৯৪৬ সালে এই বিমানবন্দর নির্মাণের জন্য তৎকালীন ইংরেজ সরকার ৬৫০ একর জমি অধিগ্রহণ করে। দু’বছরের মধ্যে এয়ারস্ট্রিপ তৈরি হয়ে গেলেও তা কোনো কাজে আসেনি। এরপর ১৯৫৪ সালে প্রথমবার বুদ্ধ পূর্ণিমার দিন এই এয়ার স্ট্রিপ ব্যবহার করা হয়। যদিও এরপর এই এয়ার স্ট্রিপ অব্যবহৃত পড়ে থাকে।

উত্তরপ্রদেশে বিএসপি সরকার থাকাকালীন ১৯৯৫ সালে মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতী এই বিমানবন্দর সংস্কারের কাজ শুরু করেন। ১৯৯৫ সালের ১০ অক্টোবর তৎকালীন কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী গুলাম নবী আজাদ কুশীনগর বিমানবন্দরের টার্মিনাল-এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। তিনবছরের মধ্যে কাজ সম্পন্ন হয়ে গেলেও তা অব্যবহৃতই পড়ে থাকে। ২০১০ সালের মার্চ মাসে কুশীনগর বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হিসেবে গড়ে তোলার প্রকল্পে জমি অধিগ্রহণের কাজ শুরু হলে কৃষক বিক্ষোভে তা বন্ধ হয়ে যায়। যদিও ২০১২ সালে সমাজবাদী পার্টির সরকার এই কাজ শুরু করে।

কুশীনগরের পথে শ্রীলঙ্কার বৌদ্ধ সাধুরা
Uttar Pradesh: আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে কোনো কৃষক বিজেপিকে ভোট দেবে না - অখিলেশ যাদব

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in