দিনের পর দিন বেতন ছাড়াই পরিষেবা দিয়ে গিয়েছেন উত্তর দিল্লির রাজন বাবু ইনস্টিটিউট অফ পালমোনারি মেডিসিন অ্যান্ড টিউবারকিউলোসিস-এর চিকিৎসক ও নার্সরা। এশিয়ার মধ্যে সর্ববৃহৎ এই রেসপিরেটরি ডিসিজের হাসপাতালটি এবার অসুবিধার মধ্যে পড়েছে। হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স, অন্যান্য কর্মচারীরা দীর্ঘ চার মাস ধরে বেতন না পাওয়ায় পরিষেবা আপাতত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাঁদের অভিযোগ, পরিস্থিতি এখন এমন অবস্থায় পৌঁছেছে যে, ধর্মঘটের ডাক দিতে তাঁরা বাধ্য হয়েছেন।

হাসপাতালের এক রেসিডেন্ট চিকিৎসক জানিয়েছেন, কতদিন এরকম বেতন ছাড়া বাঁচতে পারবো আমরা? শেষ বেতন গত ১৫ জুন তিনি নিয়েছিলেন। এরপরেও ২ মাস ধরে বেতনের জন্য অপেক্ষা করা হয়েছে। বিগত কয়েক বছরে বেতন পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করা অভ্যাস হয়ে গিয়েছিল। প্রথমে তাঁরা ভেবেছিলেন, সেরকমই হয়তো হবে। কিন্তু এবার সব সীমা ছাড়িয়ে গিয়েছে। চার মাস হয়ে গিয়েছে কোনও বেতন পাননি হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স থেকে সাধারণ কর্মচারীরা। নিজেদের জমানো পুঁজি খরচ করে এতদিন চলেছে, কিন্তু এখনই হাসপাতাল কর্তৃ্পক্ষ কোনও ব্যবস্থা না করলে ধর্মঘট চলবে।

চিকিৎসকদের মতে, নিজেদের ও পরিবারকে ঝুঁকির মুখে ফেলে মহামারীর মধ্যেই দিনের পর দিন কাজ করে যাচ্ছেন তাঁরা। যেখানে সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, কোভিড পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করতে, সেখানে সরকার আদালতের কোনও নির্দেশই মান্য না করে আদালত অবমাননার কাজ করে চলেছে। অনেক আবেদন করার পরও দিল্লি সরকার বকেয়া বেতন মেটাতে রাজি না হওয়ায় হাসপাতালের প্রতিনিধি দিল্লি সরকারের কাছে আবেদন করে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত বেতন সমস্যা সমাধানে কোনও উদ্যোগ নিতে দেখা যায়নি।

জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন