এবার কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে সরাসরি সংঘাতের পথে হাঁটতে চলেছে ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (আইএমএ)।

কেন্দ্রের প্রস্তাবিত ন্যাশনাল মেডিক্যাল কমিশন বিল ২০১৭র বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে এক সাংবাদিক বৈঠকে আইএমএ–র পক্ষ থেকে ডাঃ পার্থিব সাংভি মঙ্গলবার জানিয়েছেন, আইএমএ ন্যাশনাল মেডিক্যাল কমিশন বিলের বিরুদ্ধে, কারণ সরকার প্রস্তাবিত এই কমিশনের ৯০ শতাংশ সদস্য সরকার মনোনীত হবেন। যা অবশ্যই অগণতান্ত্রিক, অসাংবিধানিক পদক্ষেপ। তিনি আরও বলেন – পুরো চিকিৎসক সমাজের বলার সময় এসেছে ‘নো টু এনএমসি’।

মঙ্গলবার সকাল থেকেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আইএমএ-র ডাকে ন্যাশনাল মেডিক্যাল কমিশন বিল ২০১৭-র বিরুদ্ধে ধর্মঘট শুরু হয়। সকাল ৬টায় এই ধর্মঘট শুরু হয়ে শেষ হবে সন্ধ্যে ৬টায়। দেশের বিভিন্ন রাজ্যে এই ধর্মঘটে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে।

আজ দুপুরে রাজ্যসভায় প্রস্তাবিত এই বিল পেশ করার পর কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনন্ত কুমার জানিয়েছেন এই বিল স্ট্যান্ডিং কমিটির কাছে পাঠানো হবে। আগামী বাজেট অধিবেশনের আগে স্ট্যান্ডিং কমিটি রিপোর্ট জমা দেবে।

এর আগে মঙ্গলবার সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা প্রসঙ্গে আইএমএ-র প্রাক্তন সভাপতি জানিয়েছিলেন – আজ এই বিল সংসদে পেশ হবার কথা। যার প্রতিবাদে আইএমএ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। যার অর্থ আজ সন্ধ্যা পর্যন্ত হাসপাতালের বহিঃবিভাগে রোগীরা কোনও চিকিৎসা পাবেন না। এরপরেও যদি সরকার এই বিল নিয়ে এগোতে চান তাহলে ভবিষ্যতে আরও বড় আন্দোলনের পথে যাওয়া হবে। এই বিলের ফলে আগামী দিনে আরও বড় দুর্নীতির রাস্তা খুলে যাবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। স্বশাসিত এক সংস্থা ভেঙ্গে দেবার সরকারের এই প্রয়াস কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায়না।

প্রসঙ্গত, ন্যাশনাল মেডিক্যাল কমিশন বিল, ২০১৭ তে এক নতুন কমিটি তৈরি করে এমসিআই-কে বাতিল করার কথা বলা হয়েছে। যে বিল সম্প্রতি লোকসভায় পেশ করা হয়েছে। প্রস্তাবিত এই বিলে আয়ুর্বেদ, যোগ, ইউনানি, ন্যাচারোপ্যাথি, সিদ্ধা এবং হোমিওপ্যাথি প্রভৃতিকে এক ব্রিজ কোর্সের মাধ্যমে সংযুক্তকরণের কথাও বলা হয়েছে।

(ছবি – সংগৃহীত)

জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন