Covid-19: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ - শেষ ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত ১,৫২,৮৭৯

আজকের পরিসংখ্যান নিয়ে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১ কোটি ৩৩ লক্ষ ৫৮ হাজার ৮০৫। ২৪ ঘন্টায় দেশে মারা গেছেন ৮৩৯ জন, গতকাল ৭৯৪ জন প্রাণ হারিয়েছিলেন।
Covid-19: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে  ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ - শেষ ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত ১,৫২,৮৭৯
ছবি প্রতীকী সংগৃহীত

করোনার দ্বিতীয় ঢেউতে সংক্রমণের সংখ‍্যা ক্রমেই ঊর্ধ্বমুখী। বাড়তে বাড়তে এবার দৈনিক সংক্রমণ দেড় লাখের গন্ডি ছাড়িয়ে গেল। যা এককথায় ভয়াবহ। গতকাল দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১.৪৫ লাখ, আজ তা বেড়ে ১.৫২ লাখ ছাড়িয়েছে। ২৪ ঘন্টায় কোভিডে প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় ৮৩৯ জন। সক্রিয় কেসের সংখ‍্যাও ১১ লক্ষ ছাড়িয়েছে। সব মিলিয়ে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ ভয়াবহ আকারে ছড়িয়ে পড়েছে গোটা দেশে।

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, শেষ ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ১ লক্ষ ৫২ হাজার ৮৭৯, এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ দৈনিক সংক্রমণ এটাই। আজকের পরিসংখ্যান নিয়ে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১ কোটি ৩৩ লক্ষ ৫৮ হাজার ৮০৫। ২৪ ঘন্টায় দেশে মারা গেছেন ৮৩৯ জন, গতকাল ৭৯৪ জন প্রাণ হারিয়েছিলেন। এখনও পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ১ লক্ষ ৬৯ হাজার ২৭৫ জনের। ২৪ ঘন্টায় সক্রিয় কেস ৬১,৪৫৬ বেড়ে দেশে মোট সক্রিয় কেসের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ লক্ষ ৮ হাজার ৮৭।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সবথেকে বেশি প্রভাব ফেলেছে মহারাষ্ট্রে, যা সামলাতে আপতত হিমসিম খাচ্ছে প্রশাসন। যদিও শেষ ২৪ ঘণ্টায় সামান্য কমেছে সংক্রমণ। গতকাল যেখানে প্রায় ৫৮,৯৯৩ হাজার মানুষ আক্রান্ত হয়েছিলেন আজ সেখানে ৫৫,৪১১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। ২৪ ঘন্টায় রাজ‍্যে কোভিডে প্রাণ হারিয়েছেন ৩০৯ জন। রাজ‍্যে মোট আক্রান্ত ৩৩ লক্ষ ৪৩ হাজার ৯৫১, এর মধ্যে সক্রিয় কেসের সংখ্যা ৫ লক্ষ ৩৮ হাজার ১৬০। করোনার কারণে রাজ‍্যে মোট মৃত্যু হয়েছে ৫৭ হাজার ৬৩৮ জনের।

মহারাষ্ট্র ছাড়াও ছত্তিশগড়, উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, কর্ণাটক, কেরল, তামিলনাড়ু, মধ‍্যপ্রদেশ, গুজরাট - এই আটটি রাজ‍্যের পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। ছত্তিশগড়ে ২৪ ঘন্টায় দৈনিক সংক্রমণ ১৪,৯০৮। উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, কর্ণাটক, তামিলনাড়ু, কেরল, গুজরাট, মধ্যপ্রদেশে এই সংখ‍্যাটা যথাক্রমে ১২,৭৪৮, ৭,৮৯৭, ৬,৯৫৫, ৫,৯৮৯, ৬,১৯৪, ৫,০১১, ৪,৯৮৬।

করোনা প্রতিরোধে দিল্লি, পাঞ্জাব, মহারাষ্ট্রে নাইট কার্ফু জারি করেছে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। উত্তরপ্রদেশ ও কর্ণাটকের কিছু জায়গাতেও নাইট কার্ফু জারি করা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি বাড়লেও এখনই লকডাউনের পথে হাঁটছে না সরকার, সেরকমই ইঙ্গিত দিয়েছে কেন্দ্র। বরং কোভিড প্রতিষেধক দিয়ে করোনার মোকাবিলা করার কথা ভাবছে সরকার। আগামী ১১ থেকে ১৪ এপ্রিল সমস্ত রাজ‍্যগুলিকে টিকা উৎসব পালন করতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। যদিও অধিকাংশ রাজ‍্যেই টিকার অভাবে টিকাকরণ কর্মসূচি বন্ধ রয়েছে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in