কোভ্যাকসিন, কোভিশিল্ড করোনার ডেল্টা প্রজাতিকে রুখতে অক্ষম: দিল্লি AIIMS
ফাইল ছবি - সংগৃহীত

কোভ্যাকসিন, কোভিশিল্ড করোনার ডেল্টা প্রজাতিকে রুখতে অক্ষম: দিল্লি AIIMS

যদিও আইসিএমআর সমীক্ষায় দেখিয়েছে, করোনার এই নতুন প্রজাতিকে প্রতিরোধ করার ক্ষমতা আছে এই দুই ভ্যাকসিনের।

করোনার ডেল্টা প্রজাতিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আগেই বিপজ্জনক বলে ঘোষণা করেছিল। গত বছরের অক্টোবরে ভারতের প্রথম এই প্রজাতির শনাক্তকরণ হয়। তারপর তা বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে। দিল্লির এইমস গবেষকরা জানাচ্ছেন, কোভ্যাকসিন এবং কোভিশিল্ডের প্রতিরোধ ক্ষমতাকে হারিয়ে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। তার জন্য দায়ী ডেল্টা। যদিও আইসিএমআর সমীক্ষায় দেখিয়েছে, করোনার এই নতুন প্রজাতিকে প্রতিরোধ করার ক্ষমতা আছে এই দুই ভ্যাকসিনের।

এদিকে আর্থিক দিক থেকে পিছিয়ে থাকা দেশগুলোর মধ্যে টিকাকরণের শ্লথগতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে হু। মার্কিন সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ প্রতিষ্ঠানের প্রধান ফউচি বলেছেন, যথেষ্ট সংখ্যক নমুনার জিনগত বিশ্লেষণ হয়নি। তবে যেটুকু দেখা যাচ্ছে, তাতে মনে হচ্ছে, ডেল্টার কারণেই এই সংক্রমণ বেশি হচ্ছে, প্রায় ৬ শতাংশ আক্রান্ত। বাস্তবে হয়ত আরও বেশি আক্রান্ত হয়েছেন।

তিনি মনে করিয়ে দেন ব্রিটেনের নতুন সংক্রমণের প্রধান কারণ এই নতুন প্রজাতি। ব্রিটেনে প্রথম সন্ধান পাওয়া প্রজাতির তুলনায় ডেল্টা বেশি সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। কম বয়সীদের আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি জো বাইডেন। তার প্রধান স্বাস্থ্য উপদেষ্টা অ্যান্টোনি ফউচিও এই প্রজাতির ক্ষেত্রে টিকাকরণ কতটা কাজে দেবে, তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন।

যদিও আইসিএমআরের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি এবং কোভ্যাকসিন টিকার প্রস্তুতকারী সংস্থা ভারত বায়োটেক যৌথ ভাবের গবেষণা করে জানায়, কোভিশিল্ড এবং কোভ্যাকসিন নতুন প্রজাতির ক্ষেত্রেই কার্যকর। এইমস বা আইসিএমআর কোনও গবেষণা বিশদভাবে অন্য বিশেষজ্ঞদের মতামত নেওয়ার জন্য প্রকাশ করেনি। ভারতে জিনগত বিশ্লেষণ কম হলেও বিশেষজ্ঞদের অনেকেরই মতে- ভারতে দ্বিতীয় তরঙ্গের জন্য ডেল্টা প্রজাতিই দায়ী।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in