চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া আই ড্রপের ব্যবহার কতটা নিরাপদ?

চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া আই ড্রপের ব্যবহার কতটা নিরাপদ?
ছবি প্রতীকী সংগৃহীত

এবার বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে চোখের ওষুধ ব্যবহারের নিদান হাঁকলেন বাবা রামদেব।

কিছুদিন আগেই হরিদ্বারের আয়ু্র্বেদ ও ইউনানি অফিসের পরীক্ষাগারে ডাহা ফেল করেছিল পতঞ্জলি প্রোডাক্ট। আরটিআই এর উত্তরে পরীক্ষার ফলাফলে দেখা গেছে পতঞ্জলির আমলা জুস, শিবলিঙ্গী বীজ সহ আরোও অনেক পণ্যই নিম্নমানের। পাঁচহাজার কোটি টাকার এই সংস্হার বিরুদ্ধে এর আগে যথাযথ লাইসেন্স ছাড়াই নুডলস ও পাস্তা তৈরিরও অভিযোগ উঠেছিল।

এর আগে পতঞ্জলির বিভিন্ন উৎপাদনের বিজ্ঞাপনের ক্ষেত্রে ক্রেতাদের ভুল তথ্য দেবারও অভিযোগও রয়েছে। যেখানে অন্য কম্পানির প্রোডাক্ট খারাপ বলে সরাসরি মন্তব্যও করা হয়েছে। এক্ষেত্রে প্রশ্ন উঠেছে, পতঞ্জলির বেশকিছু পণ্যের গুণ ও মান সম্পর্কে যেখানে একাধিক প্রশ্ন আছে, সেখানে টেলিভিশন চ্যানেলের বিজ্ঞাপনে সেই সংস্থার আই ড্রপের (চোখের ওষুধ) বিজ্ঞাপন জনসাধারণের জন্য কতটা নিরাপদ? এই প্রচার চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই পণ্য ব্যবহারে মানুষকে প্রভাবিত করতেই পারে।

এক্ষেত্রে চক্ষু বিশেষজ্ঞদের মত অনুসারে, চোখের বিভিন্ন অসুখের চিকিৎসা ও ওষুধ সম্পূর্ন ভিন্ন। অপ্রয়োজনীয় ভাবে কোনও সংস্থার আই ড্রপের ব্যবহারে চোখের ভয়ঙ্কর ক্ষতি হতে পারে বলেই মনে করছেন চিকিৎসকরা।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in