২০১৯-এর নির্বাচনে শিবসেনাকে বাধ্য হয়ে ভোট দিতে হয়েছিলো দাবি করে বিতর্ক বাড়ালেন এই মুহূর্তে মিডিয়ার শিরোনামে থাকা কঙ্গনা রানাওয়াত। সম্প্রতি টাইমস নাও-এ এক সাক্ষাৎকারে কঙ্গনা জানিয়েছিলেন – আমি একজন বিজেপি সমর্থক। আমি আমায় শিবসেনাকে ভোট দিতে হবে?

ওই সাক্ষাৎকারে তিনি আরও জানান – আমি রাজনীতি বুঝি না। কেন এই দলবাজি তাও বুঝিনা। কিন্তু আমি বাধ্য হয়েছিলাম শিবসেনাকে ভোট দিতে কারণ সেখানে বিজেপির জন্য কোনো বোতাম ছিলোনা। জোটের জন্য ওখানে শিবসেনা প্রার্থী ছিলো। এরপরেই কঙ্গনা রানাওয়াতের এই দাবি ঘিরে বিতর্ক বাধে।

তথ্য অনুসারে, কঙ্গনা রানাওয়াত বান্দ্রা পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্রের ভোটার। লোকসভার হিসেবে এই বিধানসভা কেন্দ্র মুম্বাই উত্তর মধ্য লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্ভুক্ত। বিগত লোকসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্র থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন বিজেপির পুনম মহাজন। এবং বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্র থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন বিজেপির আশিস সেলর। এই দুই কেন্দ্রের কোনোটাতেই শিবসেনা প্রার্থী ছিলোনা। ফলত কঙ্গনা রানাওয়াতের শিবসেনাকে ভোট দিতে বাধ্য হবার দাবি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।

 

ঠিক এই কথাই নিজের ট্যুইটে বলেছেন ইন্ডিয়া টুডের সম্পাদক কমলেশ সুতার। গত ১৬ সেপ্টেম্বর এক ট্যুইট বার্তায় তিনি জানান – কঙ্গনা রানাওয়াত বলেছেন তিনি শিবসেনাকে ভোট দিতে বাধ্য হয়েছিলেন। যদিও মহারাষ্ট্র নির্বাচন কমিশনের তথ্য অনুসারে তিনি বান্দ্রা পশ্চিম কেন্দ্রের ভোটার। ২০১৯ বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্রের জয়ী প্রার্থী ছিলেন আশিস সেলর। লোকসভায় প্রার্থী ছিলেন বিজেপির পুনম মহাজন।

 

ইন্ডিয়া টুডের সম্পাদকের এই ট্যুইটে বেজায় ক্ষিপ্ত হয়ে কঙ্গনা রানাওয়াত তাঁকে আইনি নোটিশ পাঠানো ও আদালতে নিয়ে যাবার হুমকি দেন। কমলেশ সুতার মিথ্যে বলছেন বলেও দাবি করেন। এই মিথ্যে বলার জন্য কমলেশ সুতারকে জেলে যেতে হবে বলেও হুমকি দেন। এরপরই অন্য এক ট্যুইটে কঙ্গনা দাবি করেন তিনি লোকসভা নির্বাচনের কথা বলেছিলেন। কিন্তু কমলেশ বিধানসভা নির্বাচনের কথা বলছেন।

কঙ্গনার এই ট্যুইটের উত্তরে ফের কমলেশ সুতার জানান – লোকসভা নির্বাচনে আপনি খার-এ ভোট দিয়েছিলেন। যা মুম্বাই উত্তর মধ্য লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত এবং যে কেন্দ্র থেকে বিজেপির পুনম মহাজন নির্বাচনে প্রার্থী ছিলো।

 

কঙ্গনা রানাওয়াতের এই হুমকির উত্তরে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে মুম্বাই প্রেস ক্লাব। এক ট্যুইট বার্তায় তাদের পক্ষ থেকে জানানো হয় – ক্লাবের সদস্য এবং সাংবাদিকদের প্রতি কঙ্গনা রানাওয়াতের এই হুমকির তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছে মুম্বাই প্রেস ক্লাব।


পিপলস রিপোর্টার এর সব খবর এখন Telegram-এও।
সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন এই লিঙ্কে - t.me/peoplesreporter 
সব খবর পেয়ে যান হাতের মুঠোয়, এক মুহূর্তে
গুজবে নয়, খবরে থাকুন পিপলস রিপোর্টারের সঙ্গে থাকুন


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন