সুশান্ত সিং রাজপুত “বাইপোলার ডিসঅর্ডার” নামক মানসিক রোগে আক্রান্ত ছিলেন বলে দাবি করলেন তাঁর চিকিৎসক সুজান ওয়াকার। সুজান ওয়াকার একজন প্রতিষ্ঠিত মনোরোগ বিশেষজ্ঞ। সম্প্রতি সাংবাদিক বরখা দত্তের মুখোমুখি হয়ে এক সাক্ষাৎকারে তিনি একথা জানান। ওই সাক্ষাৎকারে সুজান জানিয়েছেন, তিনি মনে করেন এই বিষয়ে মুখ খোলার প্রয়োজন আছে।     

মানসিক স্বাস্থ্যের বিষয়ে মিডিয়ার দায়িত্বজ্ঞানহীন কভারেজকেই দায়ী করে সুজান বলেছেন - মানসিক স্বাস্থ্য একটি খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। মিডিয়া যেভাবে সুশান্তের মৃত্যুর বিষয় পরিবেশন করছে তাতে তিনি খুবই হতাশ। জনসাধারণের কাছে আসল তথ্য তুলে ধরা প্রয়োজন বলে তিনি মনে করেন।

তিনি আরও জানিয়েছেন, সুশান্ত ও রিয়া ২০১৯ সালে নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে এসেছিলেন সুশান্তের মানসিক স্থিতি নিয়ে পরামর্শ নিতে। এরপর থেকে সুসান জানতে পারেন এই অভিনেতা "বাইপোলার ডিসঅর্ডারে আক্রান্ত"। সুজানের মতে, "রিয়া তাঁকে মানসিক ভাবে সাহস দিয়েছেন, এইভাবে তাঁকে হেনস্থা করা নিম্নরুচির পরিচয়”।

সুজান জানান - ক্যান্সার, ডায়াবেটিসের মত মানসিক রোগেও যে কেউ আক্রান্ত হতে পারেন। এই সময় রুগী নিজেকে ভীত, সন্ত্রস্ত মনে করেন। নিজেকে আলাদা করে রাখেন সমস্ত বিষয়ে। সুশান্তের ক্ষেত্রেও তিনি এই লক্ষণগুলি পেয়েছিলেন। কিন্তু সংবাদমাধ্যম কেন সেই বিষয়কে গৌণ করে দেখছে তা স্পষ্ট নয় এবং বিষয়টি যথেষ্ট হতাশাব্যঞ্জক।

অন্যদিকে মিডিয়ার দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণ ঘিরে নিজের ইউটিউব চ্যানেল এবং ট্যুইটার হ্যান্ডেল Mojo Story  তে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাংবাদিক বরখা দত্ত। তিনি মনে করেন যে কোনো মানুষের গোপনীয়তা রক্ষার করার অধিকার আছে। কিন্তু সংবাদমাধ্যম যেভাবে একজন অভিনেতার প্রতিটি গোপনীয়তাকে জনগণের কাছে প্রকাশ করছে সেটা গ্রহণযোগ্য নয়।

যদিও এই বিষয়ে আপত্তি জানিয়েছেন নেটিজেনদের একাংশ। তাঁদের বক্তব্য, সুজান ওয়াকার কোনো চিকিৎসক নন, তাঁর কোনো মেডিক্যাল ডিগ্রি নেই। তিনি একজন কাউন্সেলর মাত্র এবং তিনি সাইকোলজিতে এম এ করেছেন লন্ডন ইউনিভার্সিটি থেকে। এই প্রসঙ্গে তাঁদের বক্তব্য, তিনি কীভাবে এই বিষয়ে মন্তব্য করতে পারেন এবং কীভাবে একজন মৃত ব্যক্তির গোপনীয় বিষয় প্রকাশ্যে আনতে পারেন? 


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন